Welcome
খেলাধুলা জাতীয় বাংলাদেশ ব্রেকিং নিউজ ভিডিও নিউজ

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা

একুশের আলো ডেস্ক || তিন দফা দাবি না মানায় ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেষে পুনরায় মহাসড়ক অবরোধে নেমেছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থীরা। সন্ধ্যায় দাবির সমর্থনে মশাল মিছিল করেন আন্দোলনরত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে ক্যাম্পাসের মূল ফটকের সামনে বরিশাল কুয়াকাটা মহাসড়কে অবরোধ শুরু করেন তারা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ভোলা-পটুয়াখালী-বরগুনা ও কুয়াকাটাগামী যাত্রীরা।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে তাদের ওপর বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় পুলিশ রহস্যজনক কারণে এখনো কাউকে আটক করেনি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে আহতরা হামলাকারীদের নামের তালিকা দিলেও প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করে অজ্ঞাতদের আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়। শিক্ষার্থীরা তা প্রত্যাখান করেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা।

এর আগে গত বুধবার সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৫টা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছিলেন শিক্ষার্থীরা। সেদিন বিকেলে মঙ্গলবারের ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা করা, দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা এবং অনাবাসিক সব শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিধানে ভূমিকা নেওয়ার তিন দফা দাবি উত্থাপন করেন শিক্ষার্থীরা। এসব দাবি পূরণে শুক্রবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিলেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সুজয় শুভ বলেন, উপাচার্য আমাদের থেকে ৪৮ ঘণ্টার সময় নিয়েছিলেন। কিন্তু এর মাঝে আমাদের কোন দাবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পূরণ করতে পারেননি।

শুভ বলেন, গতকাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেছে। কিন্তু এতে কোন আসামির নাম উল্লেখ করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দৃশ্যত একটি শ্রমিক সংগঠনের নেতাকেও ভয় পাচ্ছে। যেখানে আমরা হামলায় অংশ নেয়া নেতৃবৃন্দের নাম উল্লেখ করেছি। এজাহারে গুরুতর জখমের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এটা হতে পারতো একটা হত্যাচেষ্টার মামলা। আমরা এই মামলা প্রত্যাখ্যান করছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এখন পর্যন্ত ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন। আমাদের দাবি থাকবে আসামিরা যে দলের, যতবড় ক্ষমতাবান হোক না কেন তাদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে, আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে হামলায় জড়িতদের নাম উল্লেখ করে মামলা করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রুত কুমার দাস বলেন, ‌বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের। আমরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার বরিশাল নগরীর রুপাতলি বিআরটিসি বাস কাউন্টারে টিকিট সংগ্রহ নিয়ে বাকবিতন্ডায় বাস কর্মচারী রফিক কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করা হলে শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে, যার জের ধরে পরদিন মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মেসে গিয়ে সশস্ত্র হামলা চালায় শ্রমিক সন্ত্রাসীরা।

 

Related posts

তালতলীতে সাংবাদিক ইউনিয়নের নামে ভুয়া কমিটি গঠনের অভিযোগ

admin

আমতলীতে ব্রীজ সংস্করণে ইউএনও আসাদুজ্জামানের সরেজমিন পরিদর্শন

admin

গলিতে চলে গণপরিবহন, প্রধান সড়কে শেয়ারে চলে রিকশা ও বাইক!

admin

Leave a Comment

Translate »